আজ-  ,


সময় শিরোনাম:
«» মৌলভীবাজারে মা ও শিশুদের জন্য শেখ রাসেল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প «» মৌলভীবাজারে আত্ম প্রকাশ করলো ভিন্ন ধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল আইন নথি। «» মৌলভীবাজারে বাল্য বিয়েতে ভূয়া জন্ম সনদ «» নওগাঁর ঐতিহ্যবাহী প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার অবশেষে খুলে দেয়া হলো। «» নোয়াখালীতে ভয়াবহ অগ্নকান্ড «» বেগমগঞ্জে শিশু ধর্ষনচেষ্টায় শিক্ষক গ্রেফতার «» নওগাঁ সাপাহারে হাটবার করে ইউনিয়ন পরিষদ সমূহে পুলিশী সেবা প্রদান। «» টিআইবি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি «» টিআইবি সংশোধিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি «» শ্রীমঙ্গলে নবজাগরণ ও প্রজেক্ট ওয়ান মিলিয়ন প্লান্টেশনের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি

পর্দা নারীর সম্মানের ভূষণ

 

ইমাদ উদ্দিন হাসান

পর্দা শরীয়তের একটি গুরুত্বপূর্ণ হুকুম। এ হুকুমের উপর আমল নারীর ইজ্জত সম্মান বহুগুণে বৃদ্ধি করে। দুনিয়ার জীবনে তাকে সুসংহত ও নিরাপদ করে। পর্দা নারীর ভূষণ, নারীর পবিত্রতা, তার স্বকীয়তা, আত্মমর্যাদাবোধ, লজ্জা ও ঈমান।

 

বর্তমান সমাজে পর্দা নিয়ে নারী সমাজের চরম অবহেলা লক্ষ করা যায়, নারীরা পর্দা নিয়ে উদাসীন, কিছু মহিলা এমন বোরকা পরে যে, বোরকার উপর দিয়ে শরীরের আকার- আকৃতি বোঝা যায়। কেউ কেউ একেবারে টাইটফিট বোরকা পরে। এমন পোশাক পরে বাইরে বের হয়, যা পরিধান করে বাইরে বের হওয়া নাজায়েয। এতে বোরকার হক আদায় হয় না। শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ফুটে উঠে এমন পোশাকে যারা বের হয় তাদেরকে হাদীস শরীফে কঠিন ভাবে সাবধান করা হয়েছে।

 

এক হাদীসে তাদের উপর লানত করা হয়েছে। আর এক হাদীসে বলা হয়েছে, দুই শ্রেণীর লোক জাহান্নামী তার মধ্যে দ্বিতীয় শ্রেণী লোক হচ্ছে, ঐ সকল নারী, যারা পোশাক পরিধান করা স্বত্তেও বিবস্ত্র। অন্যকে নিজের প্রতি আকর্ষণকারিনী ও নিজেওআকৃষ্ট। বুখতি উটের উঁচু কুঁজের মতো তাদের চুলের খোপা। এসব নারী জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। এমনকি জান্নাতের সুগন্ধিও পাবে না। অথচ জান্নাতের সুগন্ধি অনেক দূর থেকে পাওয়া যাবে।

 

আল্লাহ তায়ালা নির্দেশ করেছেন তোমরা নারীদের কাছ থেকে যখন কিছু চাইবে, তখন হিজাবের আড়াল থেকে চাইবে, এটা তোমাদের ও তাদের মনের অধিকতর পবিত্রতার জন্যে খুবই উপযোগী (সূরা আহযাব : ৩৩-৫৩)।

 

মহান রব আশরাফুল মাখলুকাত হিসাবে মানুষ জাতিকে সৃষ্টি করেছেন। মানব জাতিকে আবার দু’ভাগে সৃষ্টি করেছেন- (১) পুরুষ (২)নারী। মহানবী (সাঃ) এ ছেলেদেরকে তার উপর প্রাধান্যও দেয়নি, তাহলে ঐ কন্যার কারণে আল্লাহ তাকে বেহেশত দান করবেন। (মুসনাদে আহমদ)। বর্তমানে নারী সমাজকে সমান অধিকারের নামে রাস্তায় নামিয়ে এক অন্ধকার জগতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তাদের মান সম্মান ধুলোয় মিশিয়ে তাদেরকে করা হচ্ছে যৌনকর্ম। অথচ ইসলাম নারীকে পূর্ণ সম্মান দিয়েছে। যা আর কোনো ধর্মে নেই। তাইতো বিখ্যাত আমেরিকান অমুসলিম লেখিকা “হেলমিয়ান স্ট্যান্সব্যাপলী” বলেন-মুসলিম সমাজ ব্যাবস্থা একটি বিশুদ্ধ ও পরিপূর্ণ জীবন ব্যাবস্থা।মুসলিম নারীরা দৈহিক ও আত্নিকভাবে স্বাধীনতা ও সুখের স্বর্গে বাস করেন।

 

পর্দা শব্দটি আরবি ‘হিজাব’ শব্দের বাংলা। যার অর্থ আবরণ। শরীয়তের পরিভাষায় নর-নারীর পর পুরুষের দৃষ্টির আড়ালে থাকার নাম পর্দা।অন্যদিকে বলা যায় আল্লাহ কতৃক নির্ধারিত “সতর”তারই নির্দেশ অনুযায়ী পোশাকে আবৃত করা।পর্দা করা প্রাপ্ত বয়স্ক সকল নর-নারীর উপর ফরজ। হে নবী! তুমি তোমার পত্নী, তোমার কন্যা এবং মোমেনগণের পত্নীগণকে বল, যেন তাহারা তাহাদের চাদর নিজেদের উপর (মাথা হইতে টানিয়া মুখমণ্ডল পর্যন্ত) ঝুলাইয়া লয়। এতদ্বারা তাহাদের পরিচয় অত্যন্ত সহজ হইবে এবং তাহাদিগকে কষ্ট দেওয়া হইবে না। বস্তুতঃ আল্লাহ অতীব ক্ষমাশীল, পরম দয়াময়।” (সূরা আহযাবঃ ৬০)। হাদিসে রাসুল (সাঃ) বলেন মহিলাগণ ঢেকে রাখার বস্তু। যখনই তারা পর্দাহীনভাবে বাইরে আসে শয়তান তাদের প্রতি উঁকি মারে। (তিরমিজি)।

 

কুরআনের মধ্যে গায়রে মাহরামদের সাথে দেখা করা হারাম হলেও মাহরামদের সাথে দেখা করা হালাল করা হয়েছে। মাহরাম ব্যক্তিরা হলেন-(১) পিতা, দাদা, নানা, পরদাদা, পরনানা (২) স্বামী (৩) স্বামীর পিতা, পিতামহ (৪) আপন ভাই, বৈমাত্রেয় ভাই, বৈপিত্রেয় ভাই (৫) আপন পুত্র(৬) সতীনের পুত্র (৭)আপন চাচা (৮) আপন মামা(৯) ভাতৃপুত্র ও তার সন্তানগণ (১০)ভগ্মিপুত্র ও তার সন্তানগণ(১১)নিজের গোলাম (যা বর্তমানে নেই) (১২) মুসলমান নারীগণ এবং (১৪) অতিশয় বৃদ্ধ যার কামনা নেই। (সূরা নূর)। উল্লিখিত পুরুষগণ ব্যাতীত অন্যদের সাথে দেখা করা হারাম।

 

সমাজের আজ এই করুন অবস্থা মহিলাদের বেপর্দার কারণেই।আজ চারিদিকে শুনা যায় নারী ধর্ষণ,জারজ সন্তান জন্মদান,নারীদের উপর নির্যাতন, তালাক, হত্যা ব্যভিচার, পরকিয়া, প্রেমসহ সব রকম অপকর্ম। তাইতো রাসূল (সাঃ) বলেছেন- যখন তোমার লজ্জা থাকবেনা তখন যা ইচ্ছা তাই করতে পারবে। (বুখারি।

 

পর্দাশীন মেয়েদের অপমান করার নজির খুব কমই পাওয়া যায়। পর্দাহীন মেয়েরাই সব সময় অপমানিত লাঞ্ছিত আর অপদস্ত হচ্ছে। পর্দাহীনতার সিঁড়ি বেয়েই চরিত্রহীনতার যাত্রা শুরু হয়।

 

মহান আল্লাহ্‌ তা’আলা সংশ্লিষ্ট সবাইকে পর্দার প্রকৃত তাৎপর্য উপলব্ধি করে তা পালন করার শক্তি দান করুন। আমীন।