আজ-  ,


সময় শিরোনাম:
«» মৌলভীবাজারে মা ও শিশুদের জন্য শেখ রাসেল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প «» মৌলভীবাজারে আত্ম প্রকাশ করলো ভিন্ন ধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল আইন নথি। «» মৌলভীবাজারে বাল্য বিয়েতে ভূয়া জন্ম সনদ «» নওগাঁর ঐতিহ্যবাহী প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার অবশেষে খুলে দেয়া হলো। «» নোয়াখালীতে ভয়াবহ অগ্নকান্ড «» বেগমগঞ্জে শিশু ধর্ষনচেষ্টায় শিক্ষক গ্রেফতার «» নওগাঁ সাপাহারে হাটবার করে ইউনিয়ন পরিষদ সমূহে পুলিশী সেবা প্রদান। «» টিআইবি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি «» টিআইবি সংশোধিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি «» শ্রীমঙ্গলে নবজাগরণ ও প্রজেক্ট ওয়ান মিলিয়ন প্লান্টেশনের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি

সিলেট-১ আসনে আ.লীগের মনোনয়ন ফরম কিনলেন ছহুল হোসেইন

এমদাদর রহমান চৌধুরী জিয়া// একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মর্যাদাপূর্ণ সিলেট-১ আসনের আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ‘সিলেট রতœ’ খ্যাত সাবেক নির্বাচন কমিশনার ও আইন সচিব ছহুল হোসেইন। শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা ও আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ের পাশের নতুন ভবন (বাড়ি-৫১, সড়ক-৩/এ, ধানমন্ডি আ/এ, ঢাকা) থেকে ছহুল হোসেইনের পক্ষে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেন তার পরিবারের সদস্যরা।
সিসিকের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও ছহুল হোসাইনের ভাতিজা দিলওয়ার হোসেইন সজীব সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ছহুল হোসাইন জনগণের জন্য কাজ করতে আগ্রহী। এ কারণে তিনি নিজ এলাকার মানুষের উন্নয়ন নিয়ে ভাবছেন। আর এই ভাবনা থেকে তিনি ভোটের মাধ্যমে রাজনীতিতে নামতে চান।
সিলেট-১ থেকে নির্বাচনে প্রস্তুত আছেন উল্লেখ করে সাবেক নির্বাচন কমিশনার ছহুল হোসেইন বলেন, দেশে-বিদেশে অবস্থানরত শুভাকাংখী এবং তৃণমূল আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের অনুরোধে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দেশের হয়ে, দেশের জনগণের হয়ে কাজ করতে আগ্রহী। আর এজন্যই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকন্যা, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে এই আসনে মনোনয়ন দিলে আমি নির্বাচন করতে প্রস্তুত।
রাষ্ট্রীয় একাধিক গুরুত্বপূর্ণ দ্বায়িত্ব পালন করা ছহুল হোসেইনের নিজ বাড়ি সিলেট নগরীর কাজিটুলায়। ১৯৪২ সালে সিলেটের একটি অভিজাত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছেন তিনি। কাজী জালাল উদ্দিন বালক মক্তব স্কুলে প্রাথমিক, এইডেড হাই স্কুলে মাধমিক এবং সিলেট এমসি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়ালেখা করেন তিনি। পরবর্তীতে ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এলএলবি বিভাগে ৪র্থ স্থান অধিকার করেন।
কর্মজীবনের শুরুতে ১৯৬৫ সালে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য মনোনীত হন তিনি। ১৯৬৮ সালে বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে মুনসেফ (সাব জজ) হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে ক্রমান্বয়ে ৬টি জেলায় জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে অত্যন্ত সুনামের সাথে দ্বায়িত্ব পালন করেন তিনি। পরবর্তীতে তিনি আইন,বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেন। পরে পদোন্নতি পেয়ে আইন সচিব হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে অবসরে যান। সর্বশেষ ২০০৭ সালে তিনি নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দ্বায়িত্ব পান। দ্বায়িত্ব পালন করেন ২০১২ সাল পর্যন্ত। মূলত ২০০৭ সালে ওয়ান ইলেভেনের সময় থেকে সিলেটে ছহুল হোসাইনের পরিচিতি বাড়ে। সিলেটের সন্তান হিসেবে তিনি সবার কাছে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন।
আইন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ছহুল হোসেইন লিখেছেন একাধিক আইন বিষয়ক বই। তার লিখিত বই “ঈৎ.চ.ঈ ঞড়ফধু” ধ নড়ড়শ ড়হ ঢ়ৎড়পবফঁৎব ড়ভ ঃৎরধষ ড়ভ পৎরসরহধষ পধংবং সর্বমহলে ব্যপক সমাদৃত হয়েছে। বইটি সুদীর্ঘ তিন দশক ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিষয়ক ক্লাসে পাঠদান করানো হয়। এছাড়া আইন বিষয়ক মাসিক ল’ জার্নাল “ইধহমষধফবংয ঈধংব জবঢ়ড়ৎঃং” এর প্রধান সম্পাদক ছিলেন তিনি। তিনি সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশন, সিলেট জেলা বার, বাংলা একাডেমী, অফিসার্স ক্লাবসহ বেশ কয়েকটি প্রফেশনাল সোসাইটির সদস্য।
ভারত, নেপাল, জাপান, ইংল্যান্ড, এবং শ্রীলংকার সংসদ নির্বাচনে আন্তর্জাতিক নির্বাচন পর্যবেক্ষক হিসেবে দ্বায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। এছাড়াও জাতিসংঘ ও বিশ্বব্যাংকের অধীনে পরিচালিত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রজেক্ট, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ, চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জসহ বিভিন্ন সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ দ্বায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। বর্তমানে তিনি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।
তার এমন কৃতিত্বপূর্ণ কার্যক্রমে সিলেট রতœ ফাউন্ডেশন তাকে ২০১২ সালে ‘সিলেট রতœ’ উপাধিতে ভূষিত করে।