আজ-  ,


সময় শিরোনাম:
«» কুলাউড়ায় কবি সাহিত্যিক ও লেখক পরিষদের জেলা নেতৃবৃন্দকে সংবর্ধনা «» সুস্থ ও নিরাপদ ব্যাংকিং ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় ১০ দফা সুপারিশ টিআইবির «» ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর কর্তৃক তদারকি অভিযান «» নওগাঁ সাপাহারে ফায়ার সার্ভিসের অগ্নিনির্বাপক মহড়া অনুষ্ঠিত। «» নওগাঁয় সিভিল সার্জনের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। «» আসুন সবাই হাঁটা ও সাইকেলে ফিরি, বাসযোগ্য প্রকৃতিবান্ধব নগর গড়ি’—শেখ আরিফ «» ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) «» পর্তুগালে বিদায়ী রাষ্ট্রদূতকে আ.লীগের সংবর্ধনা ★ «» রাজনগরে কুয়েত প্রবাসীর উপর সন্ত্রাসী হামলা «» বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার রাস্তা সংস্কারের দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

নয়ন জুড়ানো লেমন গার্ডেন রিসোর্ট শ্রীমঙ্গলের লেমন গার্ডেন রিসোর্ট এক প্রকৃত প্রাকৃতিকতা

মু রিমন ইসলাম,

শ্রীমঙ্গল এক অনবদ্য প্রকৃতি সৌন্দর্যের লীলাভূমি।চা-এর রাজধানী খ্যাত এ জনপদেও ছোট-বড় চা বাগান গুলো যেন সবুজ গালিচাচ্ছাদিত চক্ষু শীতল কারী ভূ-স্বর্গ রূপ ধারন করেছে।এ সবুজ যেন চোখের জ্যোতি বাড়ায় ভ্রমন পিপাসুদের।গ্রান্ড সুলতান টি রিসোর্ট এন্ড গল্ফকে বলা হয় একটি পাঁচ তারকা মানের হেটেল,যা দেশ-বিদেশের পর্যটকদেও জন্য শ্রীমঙ্গলের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে আকর্ষণীয় কওে তুলেছে।ব্যক্তি পর্যায়েও অনেক গুলো রিসোর্ট,কটেজ নান্দনিক ভাবে গড়ে উঠছে,যা এ এলাকায় পর্যটনকে একটি শিল্প হিসেবে রূপ দিতে সহায়তা করবে।আজ আমার লেখার ফোকাস পয়েন্ট হল,ব্যক্তি পর্যায়ে গড়ে উঠা একটি রিসোর্ট,যার নাম “লেমন গার্ডেন রিসোর্ট”যা তিলে-তিলে গড়ে তুলছেন শ্রীমঙ্গলের উদীয়মান তরুন ব্যবসায়ী জনাব মোঃ সেলিম মিয়া,যিনি একাধারে একজন প্রথম শ্রেণীর, ঠিকাদার,টিম্বার মার্চেন্ট এবং বাগান খামারী।ব্যবসায়ী পরিবারের সন্তান জনাব সেলিম তার ব্যবসায়ী গুরু হিসেবে গর্ব ভরে পরিচয় দেন তার অগ্রজ জনাব মহসিন মিয়া মধুকে,যিনি একাধারে শ্রীমঙ্গলের সম্মানিত মেয়র ও সফল ব্যবসায়ী আইকন।নিতান্ত একটি লেবু বাগান(লেমন গার্ডেন)যেখান থেকে অন্য দশজন বাগান মালিকের মতই তিনি লেবু চাষ,উৎপাদন এবং বাজার জাত করন ছিল তার অন্যতম পেশা।লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের সীমানা ঘেষা নিজস্ব ও পরিবারিক প্রায় শত বিঘার উপর পাহাড়ী ভূমিতে জনাব সেলিম মিয়া নিজস্ব রুচি,চিন্তা,গবেষণায় হাজার প্রজাতির ফুল,বাহারী গাছ-গাছালী এবং দৃষ্টি নন্দন স্হাপত্যশৈলীর রসায়নে গড়ে তুলেছেন,তার স্বপ্নের”লেমন গার্ডেন রিসোর্ট”।ভ্রমন পিপাসুরা লাউয়াছড়া প্রান্ত ঘেষা মেঠো পথে এগোতে থাকলেই,পাহাড়ী আকা-বাকা পথে সাইনবোর্ডের ডিরেকশন আপনাকে পৌছে দিবে লেমন গার্ডেন রিসোর্টে।আপনার সাথী যদি রিসোর্টটি প্রথম দর্শনে যান, তাহলে আপনাদের মাঝে মৃদু ঝগড়াটাও বেধে যেতে পারে,যে কোন অরণ্যে আপনি তাকে নিয়ে যাচ্ছেন! একমাত্র মধ্যম উচ্চতার পাহাড়ে উঠেই আপনারা উভয়ে সারপ্রাইজটা ভাগ করতে পারেন এক গøাস করে তাজা লেবুর শরবত পানের মাধ্যমে।বিশ্বাস করুন,সেখানে আপনি ভাল স্মৃতি নিয়েই কাটাতে পারেন দু-একটি দিন, ইট-পাথরের রং মিতালীর শহুরে জীবনে অতিষ্ট হওয়া থেকে।
প্রতমতঃ সম্পূর্ণ পাহাড়ী পরিবেশ,সবুজের দিগন্ত জোড়া আকর্ষণীয় গাঢ়তা।একটি উঁচু-নিচু সু বিশাল লেবু বাগানের গাছ ভরা ঝুলন্ত লেবু,সেখানে আরও দেখবেন শত-শত কাঠাল,কলাগাছ,পেয়ারা,জাম্বুরা,আতাফল,জামরুল,কৎবেল, আনারসের সুবিশাল বাগান, নারিকেল, আমড়া, কামরাঙা, বেল,পেঁপে,পাহাড়ীডালিম,মালটা,জলপাই,বড়ইসহআরও কত ধরনের দেশী ফলের দূর্লভ গাছালীর সমাহার।ফুলের কথাতো বলাইহলনা।দেশী-বিদেশী অগুনতি ফুল, পাতাবাহার, বনবিলাস আপনার চোখকে ধাধায় ফেলে দেবে।আরও যে কত জাতের দূর্লভ সংগ্রহ তা দেখে জনাব সেলিম এর কালেকশন দক্ষতার চাক্ষুষ পরিচয় দিয়ে দেবে।এর মূল আকর্ষণই হল তার নিখুঁৎ ফুল বিন্যাস।তাছাড়া কু প্রজাতির ঔষধী ও বনাজী গাছের সমারোহ তো আছেই।পাহাড়ী স্বকীয়তা সম্পূর্ণ বজায় রেখে ৪০ টির মত দৃষ্টি নন্দন পাহাড়ী রুম/কটেজ আপনার স্বপ্নের রাত্রী যাপনে আপনাকে স্মরনীয় করে রাখবে।রাত্রী নামতেই গন্ধরাজ এবং তার দল,সৌরভ ছড়ানোর প্রতিযোগীতায় নামে,জোনাকী দলের ঝি-ঝি ডাক,মৃদু কুহলিকায় হিল্লোল তুলে,অকৃত্রিম ডুবায় ব্যাঙের ডাকতো আপনাকে ঘুমপাড়ানির গান শুধাবে।পাহাড়ী সেবকদের সরলতার খেদমত আপনাকে পাহাড়ী স্বাদ দিবে।পাহাড়ী কাট-খড়ির সুস্বাদু খাদ্য স্বাদতো আলাদা! লেমন গার্ডেন রিসোর্টের পরবর্তী আকর্ষণতো আরও লোভনীয়।বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ সুইমিং পুল,কিডস জোন,রাইডিংজোন,স্পা,জিম,জেন্টস-লেডিস আলাদা চেন্জ রুম,জাকোজি,অর্গানিক ফল কর্ণার,কফি কর্ণার এবং সুইমিংপুল কেন্দ্রিক আরও ৪ টি তিন তলা বিশিষ্ট দৃষ্টি নন্দন পাহাড়ী ধাছের বিল্ডিং এর কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।আশা করা যায় আগামী ৬ মাস পর লেমন গার্ডেন রিসোর্ট হবে বাংলাদেশের অন্যতম সেরা পর্যটক আকর্ষণ কেন্দ্র।আমরা আশা করি এর মাধ্যমে শ্রীমঙ্গলের সম্মাজনক পরিচিতি পৃথিবীর সকল কর্ণারেই বিরাজ করবে।