আজ-  ,


সময় শিরোনাম:
«» মৌলভীবাজারে মা ও শিশুদের জন্য শেখ রাসেল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প «» মৌলভীবাজারে আত্ম প্রকাশ করলো ভিন্ন ধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল আইন নথি। «» মৌলভীবাজারে বাল্য বিয়েতে ভূয়া জন্ম সনদ «» নওগাঁর ঐতিহ্যবাহী প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার অবশেষে খুলে দেয়া হলো। «» নোয়াখালীতে ভয়াবহ অগ্নকান্ড «» বেগমগঞ্জে শিশু ধর্ষনচেষ্টায় শিক্ষক গ্রেফতার «» নওগাঁ সাপাহারে হাটবার করে ইউনিয়ন পরিষদ সমূহে পুলিশী সেবা প্রদান। «» টিআইবি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি «» টিআইবি সংশোধিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি «» শ্রীমঙ্গলে নবজাগরণ ও প্রজেক্ট ওয়ান মিলিয়ন প্লান্টেশনের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি

৮ বছরের শিশু হত্যার দায়ে ফাঁসি

  1. কমলগঞ্জের একজনের ফাঁসির আদেশ
    কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
    মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বাদে উবাহাটা গ্রামের আপন ভাতিজা ৮ বছরের শিশু তাজুল ইসলাম ওরফে তাজু মিয়া হত্যা মামলার একমাত্র আসামী চাচা চান মিয়াকে ফাঁসির আদেশ ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে মৌলভীবাজার আদালত। মঙ্গলবার মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। চান মিয়া কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বাদে উবাহাটা গ্রামের আবু আলীর ছেলে।
    মৌলভীবাজার আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০৮ সালের ২৫ মার্চ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে পারিবারিক জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় চান মিয়া আপন ভাই মো. আলী আকবরের ছেলে তাজুল ইসলাম ওরফে তাজু মিয়া (৮)কে স্থানীয় মসজিদ থেকে ধরে নিয়ে মসজিদের পাশের জমিতে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনাস্থলেই তাজুল মারা যায়। ঘটনার দিনই তাজুল ইসলামের বাবা আলী আকবর বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার দুই মাস পর ২০০৮ সালের ২৫ মে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কমলগঞ্জ থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক রতন চন্দ্র দেবনাথ মৌলভীবাজার আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
    দীর্ঘ ৯ বছর পর আদালত সকল সাক্ষীর সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আসামি চান মিয়াকে দন্ডবিধির ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে আদালত ফাঁসির রায় ঘোষণা করেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট কৃপাসিন্ধু দাশ।